ইন্টারনেটের প্রতি আসক্তির ক্ষতিকর দিক

ইন্টারনেটের প্রতি আসক্তির রয়েছে মারাত্নক ক্ষতিকর দিক

মুঠোফোন, ট্যাবলেট, ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ কম্পিউটার নিয়ে অতি ব্যস্ত হয়ে থাকছে শিশু-কিশোর, তরুণদের একাংশ। প্রযুক্তি বা ইন্টারনেটের প্রতি সন্তানের আসক্তি বাবা-মায়ের চিন্তার কারণ। কেউ মুঠোফোন বা ল্যাপটপে গেম খেলে, কেউ নিষিদ্ধ ওয়েবসাইটে গিয়ে উত্তেজক ছবি বা ভিডিও দেখে। আবার কেউ সফটওয়্যার ও অ্যাপ নিয়ে ব্যস্ত থাকে, কেউ বা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে বন্ধুর সঙ্গে চ্যাট করে।

সামাজিক দক্ষতা কমে যায়। দৈনন্দিন সমস্যা সমাধানে ব্যর্থ হয় এবং কোনো বিষয়ে কার্যকরী সিদ্ধান্ত নিতে পারে না। ধীরে ধীরে সমাজ-বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।

জীবনের গুণগত মান কমে যায়। পড়ালেখাসহ সব কাজের গতি ও মান নিচে নামতে থাকে। হতাশা বা বিষণ্নতায় আক্রান্ত হতে পারে; ঘটাতে পারে আত্মহত্যা।

অন্যদের সঙ্গে আচরণ সুষম হয় না, খিটখিটে মেজাজ আর অস্থিরতা দেখা দেয়, সম্পর্কের জটিলতা তৈরি হয়।

সাইবার অপরাধের শিকার হওয়া বা সাইবার জগতের অপরাধে জড়িয়ে আইনি ঝামেলায় পড়ে যেতে পারে।

ব্যক্তিত্বের পরিবর্তন ঘটে; যা কারও পরবর্তী বিবাহিত জীবনকে অসফল করে তোলে। উত্তেজক ওয়েবসাইটের আসক্তির কারণে যৌন অপরাধ বা যৌন সমস্যা তৈরি হতে পারে।

Facebook Comments