একাদশের ক্লাস শুরু আজ আবেদন করেও ভর্তির বাইরে ১ লাখের বেশি শিক্ষার্থী

একাদশ শ্রেণিতে আজ শনিবার সারা দেশের সব কলেজে ক্লাস শুরু হচ্ছে। কিন্তু আবেদন করেও এখনো ভর্তির বাইরে রয়ে গেছে এক লাখ ১১ হাজার শিক্ষার্থী। পুনরায় ভর্তির আবেদনের কোনো সুযোগ না পেলে এসব শিক্ষার্থীর পক্ষে কলেজে ভর্তি হওয়া সম্ভব নয়। কারণ এই শিক্ষার্থীর বড় অংশই কলেজ পছন্দ না হওয়ায় নিশ্চয়ন পর্যন্ত করেনি। আবার এমনও শিক্ষার্থী রয়েছে যারা জিপিএ ৫ পেয়েও পছন্দক্রম খুবই সীমিত রাখায় কলেজ নির্বাচিত করে দিতে পারেনি আন্ত শিক্ষা বোর্ড। এ অবস্থায়ই একাদশের ক্লাস শুরু হচ্ছে। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদও আজ সকালে ঢাকা কলেজে একাদশ শ্রেণির ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশন ও নবীনবরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেবেন।

আন্ত শিক্ষা বোর্ড সূত্র জানায়, তিন ধাপে ১৩ লাখ ১৯ হাজার শিক্ষার্থীকে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য কলেজ নির্বাচিত করে দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ১২ লাখ ৩৬ হাজার শিক্ষার্থী কলেজ নিশ্চয়ন করেছে। তবে এর মধ্যে কত শিক্ষার্থী ভর্তি হয়েছে সে তথ্য এখনো তাদের হাতে এসে পৌঁছেনি। যদিও নতুন করে ২ থেকে ৪ জুলাই পর্যন্ত ভর্তির সময় বাড়ানো হয়েছে। এর পরই জানা যাবে নিশ্চয়ন করেও সবাই ভর্তি হয়েছে কি না।

তবে ৮৪ হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে যাদের ভর্তির জন্য আন্ত শিক্ষা বোর্ড কলেজ নির্বাচন করে দিলেও তারা নিশ্চয়ন করেনি। আর এই কলেজ নিশ্চয়নের সুযোগও শেষ হয়ে গেছে। আর ২৭ হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে যারা আবেদন করলেও তাদের এখনো কলেজ নির্বাচন করে দিতে পারেনি বোর্ড। যাদের মধ্যে এক হাজার শিক্ষার্থী জিপিএ ৫ পেয়েও একটি কলেজেও নির্বাচিত হতে পারেনি। এসব শিক্ষার্থীকে নতুন করে আবেদনের সুযোগ না দিলে তাদের আর ভর্তি হওয়ার সুযোগ নেই।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক ড. আশফাকুস সালেহীন বলেন, ‘আমরা আগে থেকেই শিক্ষার্থীদের ১০টি কলেজ পছন্দ করতে বলে আসছি। কিন্তু এই ২৭ হাজার শিক্ষার্থীর পছন্দক্রম একেবারেই সীমিত ছিল। অনেকেই দুই-তিনটি কলেজ পছন্দ করেছে। এমনকি তিনবার সুযোগ থাকার পরও তারা তাদের পছন্দ সীমিতই রেখেছে। ফলে তাদের চেয়েও অন্যদের প্রাপ্ত নম্বর বেশি থাকায় এই ২৭ হাজার শিক্ষার্থীকে কলেজ নির্বাচিত করে দেওয়া সম্ভব হয়নি। তবে চিন্তার কোনো কারণ নেই। সারা দেশে ৯ হাজার কলেজে আসন প্রায় ২৮ লাখ। যার অর্ধেকই খালি থাকবে। তাই এসব শিক্ষার্থীকে কোন উপায়ে ভর্তির সুযোগ দেওয়া যায়, সেটা আমরা ভাবছি। অবশ্যই কলেজগুলোর শূন্য আসনে তারা ভর্তির সুযোগ পাবে। ’

জানা যায়, এবারের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয় ১৪ লাখ ৩১ হাজার ৭২২ জন। আর একাদশে ভর্তি আবেদন করেছিল ১৩ লাখ ১৯ হাজার। অর্থাৎ আবেদনই করেনি এক লাখ ১২ হাজার ৭২২ জন। আর আবেদন করেও ভর্তির বাইরে রয়েছে এক লাখ ১১ হাজার।

মোট দুই লাখ ২৩ হাজার শিক্ষার্থীকে কিভাবে ভর্তির সুযোগ দেওয়া যায় সে ব্যাপারে বৈঠক করেছে আন্ত শিক্ষা বোর্ড। এতে কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, যদিও তা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনসাপেক্ষে চূড়ান্ত করা হবে। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, ৪ জুলাই ভর্তি শেষ হওয়ার পর কোন কলেজে কত আসন খালি আছে সেই তালিকা করে ওয়েবসাইটে দেওয়া হবে। এরপর যেই ২৭ হাজার শিক্ষার্থীকে এখনো কলেজ নির্বাচিত করে দেওয়া সম্ভব হয়নি, তাদের প্রথমে সুযোগ দেওয়া হবে। তারা আগের আবেদনের ভিত্তিতেই পছন্দক্রম বাড়াতে পারবে। এরপর দ্বিতীয় ধাপে যারা নির্বাচিত হয়েও কলেজ নিশ্চয়ন করেনি বা কোনো কারণে আবেদন করেনি তাদের সুযোগ দেওয়া হবে।

Facebook Comments
,