ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে তীব্র যানজট-ভোগান্তিতে যাত্রী এবং ব্যাবসায়ীরা

কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার মেঘনা-গোমতী সেতুর টোলপ্লাজা থেকে উপজেলার রায়পুর পর্যন্ত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ১৩ কিলোমিটার এবং গজারিয়া অংশে মদনপুর পর্যন্ত প্রায় ২৯ কিলোমিটারে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকা পড়ে যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

হাইওয়ে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার রাতে ওই সেতুর ওপর চারটি ট্রাক বিকল হয়ে পড়ায় ওই দিন ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে ট্রাকগুলো সরিয়ে নেওয়ার হলেও গাড়ির চাপ বাড়ায় যানজট দূর হয়নি।

ভবেরচর হাইওয়ে পুলিশের পরিদর্শক মো. সাইফুর রহমান মজুমদার বলেন, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত মেঘনা সেতুর ওপর মালবাহী চারটি ট্রাক বিকল হয়ে পড়ার পর থেকে এ যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। সকালে যানবাহনের চাপ বাড়লে যানজট তীব্র আকার ধারণ করে।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল আটটায় দাউদকান্দির পেন্নাই এলাকায় কথা হয় চট্টগ্রাম থেকে থেকে ঢাকাগামী হানিফ পরিবহনের বাসের চালক জুয়েল মিয়া ও আমির হোসেনের সঙ্গে। তাঁরা বলেন, রাত ১১টায় তাঁরা চট্টগ্রাম থেকে রওনা হন। সাড়ে পাঁচ ঘণ্টায় ঢাকায় পৌঁছার কথা থাকলেও দাউদকান্দির রায়পুরে এসে যানজটে তাঁরা আটকা পড়েন।

ঢাকার শনির আখড়ার মাছ ব্যবসায়ী রাশেদ মিয়া বলেন, দাউদকান্দির রায়পুর থেকে মাছের পোনা নিয়ে পিকআপে করে ঢাকায় যাচ্ছেন তিনি। চার ঘণ্টার মধ্যে পৌঁছাতে না পারলে পোনাগুলো মারা যাবে।

ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী মালবাহী পিকআপের চালক বাবুল মিয়া বলেন, ঢাকা থেকে রওনা দিয়ে ৫৪ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করতে ১২ ঘণ্টা সময় লেগেছে তাঁর।

ভবেরচর হাইওয়ে পুলিশের পরিদর্শক মো. সাইফুর রহমান মজুমদার বলেন, হাইওয়ে পুলিশ যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক করতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

Facebook Comments